mallika singh sex letmejerk.fun all indian aunties sex videos
sexygirlsvideos hdporn.tech luxure porn tv
hush pass.com redwap.website indian porno
indian first night porn videos 4tube.space panjbi sex com
hindiliks4u tubeskanks.com auntysexy
mallu hot aunty images anysex.website hd dehati video
badmsti porngo.space telugu porno
xveeios netporn.online nude boobs xxx
ipornt turkishhdporn.pro sex in karnataka
kamaveri tamil indiansexmovies.mobi assam sax
antarwsna porneff.com sexiest bollywood
indian xnxx videos joxnxx.com watch8x
xnxx english camsearch.pro bhabhi ka bf
porn hd hindi indiapornvids.pro nivetha pethuraj xxx
kannada village sex videos tubesafari.pro hindi sexy porno video
Are you facing any legal problems? Don't worry, Experts Lawyers available

প্রেম করলে জরিমানা? চলুন জেনে নেওয়া যাক প্রেমের আইন

পার্কে নজরদারীর ভার যে নিরাপত্তাকারী পুলিশের হাতে, সেই পুলিশের হাতে হেনস্তা হতে হয় প্রেমিক-প্রেমিকাদের। কিছুদিন আগে কলকাতার ইডেন গার্ডেনে চুটিয়ে প্রেম করছিলেন দুই তরুণ-তরুণী। পাখিদের ডানায় নেমে এল সন্ধ্যে। চারিদিক শুনসান। এমন সময়, প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে প্রেমিক একটু নির্জনে এগিয়ে গেল। সেই মুহূর্তে হঠাৎ এক বেপরোয়া নিরাপত্তারক্ষী মেয়েটির হাত ধরে আরও নির্জনে নিয়ে গিয়ে বলৎকার করে। প্রেমিক এসে দেখে প্রেমিকার রক্তাক্ত দেহ।বিভিন্ন পার্কে প্রেম করায় অভিজ্ঞ প্রেমিক যুগল সমীর পাল ও কাকলি সেন অভিযোগ করলেন ইডেন গার্ডেন, সেন্ট্রাল পার্ক, ইলিয়ট পার্ক, আউট্রামঘাটে গঙ্গাপাড়ে প্রেম করতে গিয়ে প্রেয় তাদের হেনস্থা হতে হয় পুলিশের হাতে। মিথ্যে কেশের হাত থেকে রেহাই পেতে জরিমানা দিতে হয়। কিন্তু পুলিশ কি প্রেম করার অপরাধে কাউকে গ্রেফতার করতে পারে? অসত্য অভিযোগ দায়ের করতে পারে?আলিপুর আদালতের আইঞ্জীবী তন্ময় চট্টোপাধ্যায় বলেন, পার্ক ও অন্যান্য পাবলিক প্লেসে নিছক প্রেম করার ক্ষেত্রে কোন বিধি নিষেধ নেই। কিন্তু আপত্তিকর কিছু করলে যার জন্য নিরাপত্তা বিঘ্নিত হচ্ছে বা হতে পারে মনে করলে পুলিশ পদক্ষেপ নিতে পারে। এক্ষেত্রে আইনের তিনটি ধারা রয়েছে। কলকাতা পুলিশ আইনের ৪১ নং ধারায় বলা হয়েছে, সুবার্বান কলকাতা বা কলকাতা অ্যাডেড এরিয়ার পাবলিক প্লেসে কোনো প্রেমিক-প্রেমিকা আপত্তিকর কিছু করলে পুলিশ ১৬০ টাকা জরিমানা করতে পারে। কলকাতা এলাকাতে ওই জরিমানার পরিমান একই। ভারতীয় দন্ডবিধীর ৩৪ ধারা অনুসারে পাবলিক প্লেসে প্রেমিক-প্রেমিকাকে আপত্তিকর অবস্থাতে দেখলে রাজ্যের পুলিশ ২০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করতে পারে। এই সব ঘটনায় পুলিশ সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে তৎক্ষণাৎ জরিমানা করতে পারে অথবা থানায় নিয়ে গিয়ে জরিমানা করতে পারে। আবার অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় পুলিশ অভিযোগকারীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের কেস সাজিয়ে চার্জশিট দাখিল করতে পারে। বিচারের ভার আদালতের।তন্ময়বাবু জানান, আইনের চোখে পাবলিক প্লেসে প্রেমিক-প্রেমিকার আপত্তিকর বা অনৈতিক কাজ বলতে বোঝায় পরস্পরকে  গভীর চুম্বন, গভীর আলিঙ্গন, প্রকাশ্য যৌনমিলন।  বিদেশে প্রকাশ্যে  গভীর চুম্বন বা গভীর আলিঙ্গন আপত্তিকর নয়, কিন্তু ভারতের আইনে জনসমক্ষে এটা ফৌজদারি অপরাধ। ইন্ডিয়ান পেনাল কোডের ২৯৪ নং ধারা অনুসারে বলা হয়েছে, পাবলিক প্লেসে আপত্তিকর বা অশ্লীল কোনো কাজ যেমন অশ্লীল গান গাওয়া, অশ্লীল আবৃত্তি বা কথা বলা, অশ্লীল ইঙ্গিত করাও অপরাধ। 

বি প্রামানিক ও লিগ্যাল টীম

এই ধরনের ঘটনার জন্য ৩ মাসের জন্য শাস্তি বা জরিমানা কিংবা দুটোই হতে পারে।বেশ কয়েক বছর আগে গুজরাটে এক ইজরায়েল দম্পতিকে প্রকাশ্যে চুম্বন করার অপরাধে ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

এই ঘটনায় দেশজুড়ে বিতর্ক হয়েছিল।নুতন সরকার আসার পর দিল্লির বিভিন্ন পার্কগুলোতে নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়েছে প্রেমিক-প্রেমিকা বা দম্পতিদের পুলিশি ঝামেলা এড়ানোর জন্য। কলকাতার পার্কগুলোতে নিরাপত্তা দেখভালের জন্য নিরাপত্তারক্ষী থাকে। সন্ধ্যে সাতটার পর পার্ক আর থাকা যায় না। ইডেন গার্ডেন, আউট্রামাঘাট, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হল ছাড়া সব পার্কগুলো কলকাতা পুরনিগমের অধীন। দীর্ঘদিন পার্কে কাজ করায় অভিজ্ঞ এক পুলিশ অধিকারীক জানান, পুলিশ কাউকে নিছক প্রেম বা গল্প করার জন্য ধরে না। হেনস্তা তো দুরের কথা। নলবন, সেন্ট্রাল পার্ক, ইডেন উদ্যান, অ্যাগ্রোহর্টিকালচর, ভিক্টোরিয়ার সামনের চত্তর, রবীন্দ্র সরোবর, লেক ইত্যাদি প্রেমকুঞ্জবনে বেলা পড়তেই শুরু হয় প্রেমিক-প্রেমিকাদের অশোভোন কাজ। শুধুমাত্র সীমা ছাড়ালে পুলিশ হস্তক্ষেপ করে। অল্পবয়সি তরুণ-তরুণীদের ক্ষেত্রে আপত্তিকর কিছু দেখলে বকাঝকা করা হয়, ভয় দেখানো হয় অথবা সতর্ক করা হয়। কিন্তু কোনো কেস দেওয়া হয় না।আইনজীবি তন্ময়  চ্যাটার্জি মনে করেন পুলিশি হেনস্তা এড়াতে প্রেমিকপ্রেমিকাদের আইন সচেতন হওয়া দরকার। উটকো পুলিশ হেনস্তা করলে স্থানীয় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে পারেন। ইভটিজিং এর শিকার হলে ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় থানায় ফোন করে জানাতে হবে। অবশ্যই সাক্ষী থাকা দরকার। যদি এক্ষেত্রে কোনো কাজ না হয় তাহলে লালবাজারের প্রথম তলায় উইমেন্স গ্রিভ্যান্স সেল-এ সরাসরি অভিযোগ জানাতে পারেন এবং এই সেল খুব তৎপরতার সঙ্গে কাজ করে। কেস অনুযায়ী ইভটিজিং – এর বিচার হয়।

সংগৃহিত

যদি আপনি /আপনারা কোনোরকমের এইরকম সমস্যার সম্মুখীন হন তাহলে দ্রুত যোগাযোগ করতে পারেন কলকাতার বিশিষ্ঠ আইনজীবী বংশীধর প্রামাণিক র লিগ্যাল টিম অথবা কলিকাতা ল ফার্ম |

বি প্রামানিক ও অ্যাসোসিয়েট লিগ্যাল টীম

About the Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Posts